এমএন্ডজে ফাউন্ডেশন টেনেসির শিশু হাসপাতালের পাশে দাঁড়ালো

0
63

জর্জিয়া বাংলা নিউজঃ আটলান্টায় প্রতিষ্ঠিত এমএন্ডজে ফাউন্ডেশন পার্শ্ববর্তী টেনেসি অঙ্গরাজ্যের সেন্ট জুডেস শিশু হাসপাতালের আর্থিক সাহায্যার্থে নিয়মিত স্পনসর হিসেবে এগিয়ে এসেছে।

ফাউন্ডেশনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে জানানো হয় যে, উক্ত শিশু হাসপাতালের সার্বিক চিকিৎসা বিশেষ করে ক্যান্সার রোগের চিকিৎসার ক্ষেত্রে তাদের এই আর্থিক অনুদান ও সহযোগিতা দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়ায় আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, এমএন্ডজে ফাউন্ডেশন গত তিন বছর ধরে জর্জিয়ার মূলধারাসহ বাংলাদেশি কমিউনিটির সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের স্পনসরসহ সহযোগিতা প্রদান ছাড়াও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান ও বয়স্কদের নানামুখী সেবা প্রদান করে আসছে। সংগঠনটির এই সেবা কর্মসূচির আওতায় এখন থেকে প্রতিবেশী রাজ্য টেনেসির এই শিশু হাসপাতালটির চিকিৎসাসহ ক্যান্সার প্রতিরোধক গবেষণা কাজে নিয়মিত স্পনসর হিসেবে পাশে থাকার অঙ্গীকারে ভুমিকা রাখতে শুরু করেছে।

এমএন্ডজে ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি জামিল ইমরান জর্জিয়া বাংলা ডট কমকে বলেন, “টেনেসির ঐ শিশু হাসপাতালের মুলত তিনটি খাতে আমাদের এই অনুদানের অর্থ ব্যবহৃত হবে। এই খাত তিনটি হচ্ছেঃ প্রথমত শিশুদের চিকিৎসায় নিজেদের পকেট থেকে যাতে কোন অর্থ ব্যয় করতে না হয়, সেটি নিশ্চিত করা হবে। এক্ষেত্রে অভিভাবকগণ শুধুমাত্র তাদের শিশুদের দেখভালের দায়িত্ব পালন করবেন। দ্বিতীয়ত অনুদানের অর্থ শিশুদের ক্যান্সার প্রতিরোধক গবেষণা কাজে ব্যয় করা হবে। তৃতীয়ত পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের যেকোন শিশু-চিকিৎসক এখন থেকে এই হাসপাতালের ক্যান্সার সংক্রান্ত সর্বশেষ গবেষণার ফলাফল ও তথ্যাবলি সংগ্রহ করতে পারবেন এবং নিজেদের দেশের ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশুদের কল্যাণে তা ব্যবহার করতে পারবেন”।

জামিল ইমরান তাঁর প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মী ও অন্যান্য সহযোগী সেবা সংগঠনগুলিকেও এধরনের মহতী সেবাকাজে এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী তাঁর বাবা ইঞ্জিনিয়ার মোফাজ্জল হোসেনের কথা উল্লেখ করে বলেন, “আমার বাবা দীর্ঘ ১০ বছর আগেই জীবিত থাকাকালে এই মহতী সেবা কর্মসূচীটি শুরু করেছিলেন। আমি বাবার এই থেমে যাওয়া কাজটিকে গতিশীল করতে চাই। আর এজন্যে সবার সহযোগিতা চাইছি”।

উল্লেখ্য, এমএন্ডজে ফাউন্ডেশনের পাশাপাশি জামিল ইমরানের পরিচালনায় এমএন্ডএস হেলথ/হোম কেয়ার নামে তার অপর প্রতিষ্ঠানটিও গত কয়েক বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার বয়স্ক চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য সেবার কার্যক্রম সম্পাদন করে আসছে।

 

 

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

*