খালেদা জিয়ার এতিমখানার অর্থ আত্মসাতের রায়ে আটলান্টায় আওয়ামী পরিবারের আনন্দ সমাবেশ

0
130

জর্জিয়া বাংলা প্রতিবেদনঃ জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে বিদেশ থেকে আসা অর্থ আত্মসাতের দায়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পাঁচ বছর কারাদণ্ডের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে আনন্দ সমাবেশ করেছে জর্জিয়া আওয়ামী পরিবার।

রায় ঘোষণার পরদিন গত বৃহস্পতিবার জর্জিয়া আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মী, জর্জিয়া যুবলীগ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্থানীয় সময় রাত সাড়ে আটটায় আটলান্টার মনসুন মাসালা রেস্তোরাঁয় এই সমাবেশে সমবেত হয়।

জর্জিয়ায় বসবাসরত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ডাঃ মুহাম্মদ আলী মানিকের সভাপতিত্বে উচ্ছ্বাসপুর্ন এই সমাবেশে অভিযুক্ত খালেদা জিয়া ও তাঁর পুত্র তারেক জিয়াসহ অন্যান্যদের রায় ঘোষণায় যথাযথ শাস্তি প্রদানে সন্তোষ প্রকাশ করে বক্তৃতা করেন জর্জিয়া আওয়ামীলীগের বিদায়ী সভাপতি মোহাম্মদ আলী হোসেন, সাবেক সভাপতি দিদারুল আলম গাজী, সাবেক সভাপতি এম মওলা দিলু, জর্জিয়া আওয়ামীলীগের বিদায়ী সিনিয়র সহ সভাপতি হুমায়ুন কবির কাওসার, সহ সভাপতি শেখ জামাল, ফজলুল হক সুরুজ, ডাঃ মোজাম্মেল হক, রমেশ সাহা, নুরুল তালুকদার নাহিদ, হাসান চৌধুরী সুহেল,সোহরাব আহমেদ, মিনহাজুল ইসলাম বাদল, মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সাদমান সুমন, মাহবুব আলম সাগর, সাজিব আহমেদ, শাখাওয়াত হোসেন প্রমুখ।

সভাপতি ডাঃ মুহাম্মদ আলী মানিক বলেন, “এই মামলাটি দীর্ঘ নয় বছর আগে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দায়ের করা হয়েছিল এবং দীর্ঘদিনের নানান প্রক্রিয়া শেষে এটির রায়ে অভিযুক্ত খালেদা জিয়া, পুত্র তারেক রহমান সহ অন্যান্য আসামীর সঠিক সাজা প্রদান করেছে বিজ্ঞ বিচারক। এতে আওয়ামীলীগ বা বর্তমান সরকারের কোন ভুমিকাও নেই, কোন কিছু করারও নেই। তবে এই ঐতিহাসিক রায়ের মধ্য দিয়ে ন্যায় বিচারের পাশাপাশি দেশে আইনের শাসন যে নিজ গতিতেই চলে, তা প্রমানিত হয়েছে”।

এছাড়া ডাঃ মানিক জর্জিয়া আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন কমিটি প্রসঙ্গে বলেন, “আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই একটি বর্ণাঢ্য সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্বের কার্যকরী কমিটি গঠন করা হবে। কাজেই এখন শুধু সবাইকে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে প্রবাসে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আমি সেইসাথে সবাইকে দলের চেইন অব কমান্ড মেনে চলার আহবান জানাই”।

বক্তারা বলেন, এই রায়ের ভেতর দিয়ে বিচার ব্যবস্থার নিরপক্ষতার সুস্পষ্ট প্রকাশ ঘটলো। আর কেই আইনের উর্দ্ধে নয়, অপরাধ করে কেউই রেহাই পাবেনা।

সমাবেশে উফুল্ল নেতা-কর্মীদের মধ্যে আনন্দের উচ্ছ্বাসের এক পর্যায়ে একে অপরের মিষ্টি-মুখ করানোর দৃশ্যের অবতারণা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

*