মানবতার জয়গান ও বাংলাদেশের গৌরব-গাঁথা নিয়ে ৩১তম ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধন

0
27

গোলাম সাদত জুয়েলঃ “মানবতার জন্য এক্য ” স্লোগানকে সামনে রেখে প্রবাসী বাংলাদেশী আমেরিকানদের বছরের সবচেয়ে বর্ণাঢ্য ফোবানার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় মায়ামীর হায়াত গ্রান্ট সাইপ্রাস হোটেলের বল রুমে গতকাল শুক্রবার রাত দশটায় । একটু দেরীতে উদ্বোধন হলেও দর্শকে পুর্ন ছিল কানায় কানায়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্যে রাখেন বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। তিনি বলেন, ফোবানা প্রবাসীদের মিলন মেলা, প্রবাসীরা দেশের জন্য যে অবদান রাখছেন তা ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। প্রবাসীদের স্বপ্নের বাংলাদেশ আজ বিশ্বে মর্যাদার আসনে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশকে রোল মডেল হিসাবে দেখছে। মানবতায় বিশ্বে আজ বাংলাদেশ সেরা। বন্যা হয়, খরা হয়, হাওরের মানুষ নি:স্ব হয়, কিন্তু কেউ না খেয়ে মরে না। প্রধানমন্ত্রীর স্ব উদ্যোগে রোহিঙ্গারাও আজ পর্যন্ত একজনও না খেয়ে মরেনি। বাংলাদেশ ২০২১ ও ২০৪১ এর পরিকল্পনা নিয়ে এগুচেছ , সেটা বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশ তৃতীয় বিশ্বের এক অনন্য রাষ্ট্রে পরিনত হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রদুত জিয়াউদ্দিন আহমদ বলেন, বাংলাদেশ আজ এক অনন্য অবস্থানে স্থান পেযেছে বিশ্বে। ক্ষুধা দারিদ্রমুক্ত ও মানবতার এক অনন্য নজির বাংলাদেশ। প্রবাসীরা বাংলাদেশকে অনেক উপরে উঠতে সহযোগিতা করছেন। বাংলাদেশ বিশ্ব মানবতার মানচিত্রে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, একটি পরিশ্রমী জাতি হিসাবে বাংলাদেশ বিশ্বে সম্মানের আসনে অধিষ্ঠিত। বহি:বিশ্বে প্রবাসীরা দেশের সুনাম বৃদ্বি করছেন প্রতিনিয়ত। বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ একটি ঘুরে দাড়াবার জাতি হিসাবে স্বীকৃত।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্বা ও নাট্য নির্দেশক নাসির উদ্দিন ইউসুফ বলেন, একজন মুক্তিযোদ্বা হিসাবে প্রবাসীদের কাছে অনুরোধ, আপনি সব ভাষা শিখুন, কিন্তু বাংলাটা যেন অবহেলা না পায়। প্রবাসী নতুন প্রজন্মের জন্য আমি মুক্তিযোদ্ধাদের ছবি নিয়ে এসেছি। প্রবাসের মুক্তিযোদ্ধারা যাতে প্রবাসে নানা ভুমিকা রাখেন, তার দিকে নজর দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়ের আনিস আহমদ, এন আর বি ব্যাংকের নিজাম চৌধুরী, উৎসব ডট কমের রায়হান জামান, ফোবানার চেয়ারম্যান ও নির্বাহী সচিব দিলু মওলা যথাক্রমে আজাদুল হক ও দিলু মওলা, আয়োজক কমিটির এমরান আহমদ, আতিকুর রহমান, কনভেনর এম রহমান জহির, আরিফ আহমদ আশরাফ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ফোবানার ১১ জন সাবেক চেয়ারম্যানদের পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।

অসম্ভব গোছালো ও পরিপাটি সংক্ষিপ্ত পরিসরের উদ্বোধনের পর্বে বিশাল মিলনায়তনটি ছিল কানায় কানায় পরিপুর্ন। এই পর্বে আমন্ত্রিত অতিথিদের উত্তরীয় পড়িয়ে দেয়া হয়।

রাত ১১ টা থেকে শুরু হয় আকর্ষনীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শিশু কিশোরদের পরিবেশনা ছিল অভাবনীয় চোখ ধাঁধানো আয়োজনে সমৃদ্ধ। ভাষার মাস ও বাংলাদেশের উপর একটি ডকুমেন্টরীর সাথে ছিল লাইভ পারফমেন্স যা পুরো অনুষ্ঠানের নতুনত্ব হিসাবে যোগ হয়। রাত ১২ টায় গনসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর সংগীত পরিবেশন করেন।

বিশ্ব মানবতার উপর একটি ডকুমেন্টরী প্রদর্শন করা হয়। সম্মেলনে জর্জিয়া, টেক্সাস, শিকাগো, মিশিগান, ওরলান্ডো, কানেকটিকাট, নিউ ইয়কসহ আমেরিকার বিভিন্ন স্টেট থেকে অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশির সমাগম ঘটে। প্রথম দিন হলেও নানান ষ্টল গুলিতে ছিল প্রবাসীদের ভিড়।

আগামী ৭ অক্টোবর বিকাল তিনটা থেকে থাকবে সেমিনার ও চলচিত্র প্রশর্দনী। আন্তর্জাতিক চলচিত্র গেরিলা, রে্ইনবো, মেঘলা ও অনিল বাগচীর একদিন প্রদর্শিত হবে। মায়ামী ফোবানায় থাকছে বিজনেস পাও্য়ার লাঞ্চ, ইউথ ফোরাম, চিলড্রেন ট্যালেন্ট শো, সা্ইন্স এক্সিবিশন, কাব্য জলসা, ৯টি সেমিনার ও প্রবাসের গুণী শিল্পীদের নানান পরিবেশনা ও মূল্যায়ন।

Print Friendly, PDF & Email