৩ নভেম্বরের জেলহত্যা দিবসে রাষ্ট্রীয় ছুটি ঘোষণার আহবান সোহেল তাজের

0
39

বিডিএনএন২৪/খবর/জর্জিয়া বাংলা নিউজঃ পচাঁত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর দ্বিতীয় কলঙ্কজনক অধ্যায় হলো ৩ নভেম্বর ‘জেলহত্যা দিবস।’ ইতিহাসের এ কলঙ্কজনক দিনে রাষ্ট্রীয় ছুটি ঘোষণার আহ্বান জানিয়েছেন শহীদ সন্তান তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ।

শুক্রবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমেদের ছেলে ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, ‘বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী জাতীয় চারনেতার সার্বিক অবদান ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ছয় দফা, গণঅভ্যুথান, সত্তুরের নির্বাচন এবং মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন স্বাধীনতা- আগামী প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা যোগাবে। নতুন প্রজন্ম যাতে জানতে পারে যে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু তাঁর সঙ্গে রেখেছিলেন যোগ্য ব্যক্তিদের, যারা তাদের দক্ষতা, যোগ্যতা আর দেশপ্রেম দিয়ে অর্জন করেছিলেন এ জাতি ও বঙ্গবন্ধুর আস্থা। তেসরা (৩) নভেম্বরকে রাষ্ট্রীয় ছুটির দিন ঘোষণা করে বঙ্গবন্ধু, জাতীয় চারনেতা এবং এই দিনের তাৎপর্য নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা উচিত।’

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ৩ নভেম্বর জেলের মধ্যে বন্দি অবস্থায় হত্যা হরা হয় জাতীয় এ চার নেতাকে। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমদ, এ এইচ এম কামারুজ্জামান ও ক্যাপ্টেন মনসুর আলীকে ৭৫এর ৩ নভেম্বর তারিখেই ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

এদিকে সোহেল তাজের এই দাবীর প্রতি সমর্থন জানাতে শুরু করেছেন অগনিত মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নাগরিক, শুভানুধ্যায়ী ও সামাজিক মিডিয়ার সমর্থক বন্ধুরা। বিষয়টি সরকার তথা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় পদক্ষেপের প্রত্যাশা করছেন অনেকেই।

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

*