নিউইয়র্কে জেল হত্যাকাণ্ডের মদদদাতাদের চিহ্নিত করার দাবিতে জেলহত্যা দিবস পালিত

জর্জিয়া বাংলা ডেস্কঃ জাতীয় চার নেতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও জেলহত্যাকান্ডের মদদদাতাদেরকে চিহ্নিত করার দাবিতে যথাযথ মর্যাদায় ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস পালন করেছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ।

সেইসঙ্গে বঙ্গবন্ধুর খুনী হিসেবে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের মধ্যে যারা এখনও যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশে পালিয়ে আছে, তাদেরকেও বাংলাদেশে ফিরিয়ে নিয়ে আদালতের রায় কার্যকর করার দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।

গত ৩ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সভাপতি ড সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে জেল হত্যা দিবসের আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের উক্ত সভায় বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় ৪ নেতার নীতি ও আদর্শ বাস্তবায়িত করতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান কার্যক্রমে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার সংকল্পও ব্যক্ত করা হয়।

আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের সঞ্চালনায় শুরুতেই বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মরণে দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় আতাউল হক গণির নেতৃত্বে।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, “জেলখানায় যারা হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে এবং এহেন বর্বরতায় যারা মদদ জুগিয়েছে, তারা সবাই একই দোষে দোষী। ঘাতকদের বিচার হলেও মদদদাতারা এখনও চিহ্নিত হয়নি কিংবা বিচারও শুরু হয়নি। ভবিষ্যতে এহেন বর্বরোচিত আচরণে আর কেউ যাতে সাহস না পায়, সেজন্যেই সকলকে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো প্রয়োজন।”

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, “আদালতে দোষী সাব্যস্তদের কেউ কেউ কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে আত্মগোপন করে রয়েছে। এদেরকে গ্রেপ্তার করে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দিতে প্রত্যেক প্রবাসীকে সহায়তা করতে হবে।”

নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী বলেন, “বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর একই মহল জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলার বুক থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ তথা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করেছিল। কিন্তু একাত্তরের পরাজিত শত্রুদের সে মতলব ফলপ্রসূ হতে পারেনি।”

যুক্তরাষ্ট্র সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক মো.আব্দুল কাদের মিয়া বলেন, “ষড়যন্ত্রকারিরা এই প্রবাসেও সক্রিয় রয়েছে। তাই মুজিব আদর্শের প্রতিটি সৈনিকে চোখ-কান খোলা রাখতে হবে। সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।”

সভায় আরও বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আকতার হোসেন, মাহবুবুর রহমান, সৈয়দ বসারত আলী, লুৎফুল করিম ও শামসুদ্দিন আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সর্দার এবং সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক সাখাওয়াত বিশ্বাস, মহানগর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোর্শেদা জামান, আইন বিষয়ক সম্পাদক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো.আব্দুল কাদের মিয়া, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক সোলায়মান আলী, উপ-প্রচার সম্পাদক তৈয়বুর রহমান টনি, নির্বাহী সদস্য খোরশেদ খন্দকার ও সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল বারি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মিসবাহ আহমেদ, ফরিদ আলম, জাহাঙ্গির হোসেন, এম এ মালেক, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ শাহনাজ, আ.লীগ নেতা শামসুল আবদিন, শেখ আতিকুল হক, খসরুজ্জামান খসরু, মুজিবুল মাওলা ও যুবলীগ নেতা নান্টু মিয়া।

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

*